নারী—শিশুর জন্য কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে আলাদা জোন

কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতে নারী ও শিশুদের জন্য আলাদা জোনের উদ্বোধন করা হয়েছে। সেখানে নারীদের সঙ্গে শুধু শিশুরাই যেতে পারবে।

বুধবার (২৯ ডিসেম্বর) সৈকতের লাবনী পয়েন্টে বেলা ১২টার দিকে এ জোনের উদ্বোধন করেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মামুনুর রশীদ।

জেলা প্রশাসন জানায়, সমুদ্রসৈকতের লাবনী পয়েন্টের বিজিবির উর্মি গেস্ট হাউজ থেকে সীগাল পয়েন্ট পর্যন্ত ১৫০ ফুট এলাকা নিয়েই এই জোন করা হয়েছে।

উদ্বোধনী বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মামুনুর রশীদ বলেন, ‘প্রশাসন চায় সৈকতে নারী ও শিশুরা বিশেষ সুরক্ষায় থাকবে। এর ফলে এ জোন অনেকে নির্বিঘ্নে আনন্দমগ্ন থাকবে। পর্যটনবান্ধব কক্সবাজার করতে আমরা সবাই কাজ করছি। হয়ত এ ছোট ছোট উদ্যোগগুলো পর্যটনকে এগিয়ে নিতে বড় ভূমিকা রাখবে।’

আরও পড়ুন: কক্সবাজারে গণধর্ষণের মূল হোতা আশিক র‍্যাবের জালে

ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার জোনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, সৈকতে বেশি ঝুঁকিতে থাকে নারী ও শিশুরা। এবার সেই ঝুঁকি কমবে। পর্যটকদের জন্য আগে থেকেই কাজ করছি। জনবল কম হলেও আমরা পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ কর যাব।

জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশশ সুপার (প্রশাসন) রফিকুল ইসলাম বলেন, এ ধরনের উদ্যোগ পর্যটনকে আরও বেগবান করবে।

ট্যুর অপারেটর অ্যাসেসিয়েশনের (টুয়াক) সভাপতি আনোয়ার কামাল বলেন, সার্বিক নিরাপত্তা যেমন প্রয়োজন তেমনি আলাদা জোনেরও দরকার আছে। কারণ অনেকেই একটু আলাদা করে সমুদ্রস্নান করতে চায়। তাদের জন্য এ জোন। নারী ও শিশুর সুরক্ষা-নিরাপত্তা দুটিই এখানে বাস্তবায়ন করা হতে পারে।’

আরও পড়ুন: কক্সবাজারে অসহায় পর্যটকরা, অভিযোগ গেল জেলা প্রশাসকের কাছে

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) সৈয়দ মুরাদ ইসলাম, ট্যুর অপরেটর অ্যাসেসিয়েশন সভাপতি আনোয়ার কামালসহ।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালেও একবার এই জোন চালু করা হয়েছিল। কিন্তু সঠিক ব্যবস্থাপনা ও নজরদারির অভাবে সেটি বন্ধ হয়ে যায়।

বলরাম/আরবি

 

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm