কক্সবাজারে ভোটযুদ্ধ কাল—নৌকার জয়ে ‘বাধা’ স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহীরা

কক্সবাজারে সদর, রামু ও উখিয়ায় ২১ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন আগামীকাল বৃহস্পতিবার (১১ নভেম্বর)। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকেই শেষ হয়েছে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। এবারের ইউপি নির্বাচনে দলীয়ভাবে বিএনপি অংশ নিচ্ছে না। তবে বিএনপির সমর্থন নিয়ে প্রায় সব ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা।

অন্যদিকে বেশকিছু ইউনিয়নে নৌকার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন অনেক বিদ্রোহী প্রার্থী। ফলে নৌকার বিজয়ে ‘পথে কাঁটা’ হতে পারেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। সবমিলিয়ে জেলার ২১ ইউনিয়নে ভোটের হিসাব পাল্টে দিতে পারেন স্বতন্ত্র ও বিদ্রোহী প্রার্থীরা।

আরও পড়ুন: নির্বাচনি সহিংসতা—কক্সবাজারে রক্তাক্ত শ্রমিক লীগ সভাপতি ও ইউপি সদস্য প্রার্থী

সদর উপজেলা
সদর উপজেলার ঝিলংজা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের টিপু সুলতান (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী এম. রাশেদুল করিম (ঘোড়া), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহিউদ্দিন পাটোয়ারী (হাতপাখা), স্বতন্ত্র মো. আবুল কাসেম (মোটরসাইকেল), মো. রায়হান (আনারস), শফিকুল ইসলাম (চশমা) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
খুরুশকুল ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের মো. শাহজাহান ছিদ্দিকী (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবদুর রহিম (আনারস) ওও মো. নুরুল আমিন (মোটরসাইকেল)।
পিএমখালী ইউনিয়নে আছেন সিরাজুল মোস্তফা (নৌকা), ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মো. আবদুর রহিম (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোস্তাক আহমদ (মোটরসাইকেল), মো. আব্দুল্লাহ (আনারস), মো. শহিদুল্লাহ (ঘোড়া) ও মো. সৈয়দ নুর (রজনীগন্ধা)।
ভারুয়াখালী ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের কামাল উদ্দিন (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী আমিনুল হক (মোটরসাইকেল), মস্উদ ইকবাল (আনারস), মোস্তাফিজুর রহমান (চশমা), রবিউল হাসান (টেবিলফ্যান) ও শফিকুর রহমান সিকদার (ঘোড়া)।
চৌফলদন্ডী ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের মুজিবুর রহমান (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী জিয়াউল হক (আনারস), মো. নুরুচ্ছবিহ (ঘোড়া), মো. শাহজাহান (মোটরসাইকেল) ও হাসান মুরাদ আনাচ (চশমা)।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. শাহাদত হোসেন বলেন, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আজকের (বুধবার) মধ্যেই প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের মাধ্যমে নির্বাচনি সরঞ্জাম পৌঁছে যাবে।

Thai Food

আরও পড়ুন: নির্বাচনি সহিংসতা—কক্সবাজারে রক্তাক্ত শ্রমিক লীগ সভাপতি ও ইউপি সদস্য প্রার্থী

উখিয়া উপজেলা
উখিয়ায় রাত পোহালেই চলবে ভোট-উৎসব। গত ২৭ অক্টোবর প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই প্রার্থীদের বিরতিহীন মাইকিং, প্রচার-প্রচারণা, পথমিছিল, পথসভা ঘরোায়া ও উঠান বৈঠকের পরিসমাপ্তি ঘটে ৯ নভেম্বর রাতে।
উখিয়ার ৫ ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৩৪ জন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রয়েছেন। উপজেলার ৫ ইউনিয়নে ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৩০ হাজার ৬১৩ জন। ৫ ইউপিতে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সঙ্গে দলের সমর্থন না পাওয়া বিদ্রোহী প্রার্থীরাও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
তবে কোনো কোনো ইউনিয়নে পিছিয়ে পড়েছেন নৌকার প্রার্থীরা। হলদিয়ায় পালং ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের অধ্যক্ষ শাহ আলমের সঙ্গে ঘোড়া প্রতীকের যুবলীগ নেতা ইমরুল কায়েস চৌধুরীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।
জালিয়াপালং ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের এসএম ছৈয়দ আলমের (সাবেক চেয়ারম্যান) সঙ্গে চশমা প্রতীকে নির্বাচন করা বর্তমান চেয়ারম্যান নুরুল আমিন চৌধুরীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। তবে সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসাইন চৌধুরীও হয়ত তাদের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতার খাতায় নাম লেখাতে পারেন বলে স্থানীয়রা মনে করছেন।
সূত্রমতে, রত্নাপালং ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের নুরুল হুদার সঙ্গে লড়াই হবে সাবেক চেয়ারম্যান ঘোড়া প্রতীকের নুরুল কবির চৌধুরীর, রাজাপালং ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের বর্তমান চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরীর সঙ্গে জেলা বিএনপির সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য শাহজাহান চৌধুরীর ভাতিজা ঘোড়া প্রতীকের সাদমান জামী চৌধুরীর, পালংখালী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী ও টানা দুবারের চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরীর ঘোড়া প্রতীকের সঙ্গে স্বতন্ত্র প্রার্থী চশমা প্রতীকের অ্যাডভোকেট এমএ মালেক, নৌকা প্রতীকের এমএ মনজুর, স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের যুবলীগ নেতা শাহাদাত হোসেন জুয়েল ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলী আহমদের হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে।
উখিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, উখিয়ার নির্বাচনের মাঠে ১৫ জন অতিরিক্ত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব, বিজিবিসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থাকবে। ভোটারদের সুষ্ঠুভাবে ভোটাধিকার প্রয়োগের সুযোগ দিতে প্রশাসন কঠোর থাকবে।

আরও পড়ুন: কক্সবাজারে রক্তের হোলি খেলা চলতে দেওয়া যাবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রামু উপজেলা
রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নুরুল হক চৌধুরী (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী ফরিদুল ইসলাম (মোটরসাইকেল) ও সিরাজুল ইসলাম ভূট্টো (আনারস)।
চাকমারকুল ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নুরুল ইসলাম সিকদার (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুর রাজ্জাক (মোটরসাইকেল), আবদুর রহিম (রজনীগন্ধা), নুরুল আলম (আনারস), ফজলুল ইসলাম (টেবিলফ্যান), মো. আলমগীর (টেলিফোন), মো. আবদুল মজিদ (ঘোড়া) ও সাইফুল ইসলাম (চশমা)। জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামাল শামসুদ্দীন প্রিন্স, স্বতন্ত্র প্রার্থী আনছারুল আলম (চশমা), আবছার কামাল সিকদার (মোটরসাইকেল), এমএম নুরুচ্ছফা (ঘোড়া), গোলাম কবির (অটোরিকশা), রাশেদুল ইসলাম (আনারস) লড়ছেন।
খুনিয়াপালং ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবদুল মাবুদ (নৌকা), ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থী কবির আহমদ (হাতপাখা), স্বতন্ত্র আবদুল হক (চশমা), কামাল উদ্দিন (টেলিফোন), দেলোয়ার হোসেন (অটোরিকশা), মো. হাবিবুর রহমান (আনারস), রহিম উল্লাহ (মোটরসাইকেল) ও হোসাইন আহমেদ (ঘোড়া)।
দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের খোদেশতা বেগম রীনা (নৌকা), ইসলামী আন্দোলনের মো. শফীউল্লাহ (হাতপাখা), স্বতন্ত্র ইয়াসিন মনির সোহাগ (আনারস), ইয়াকুব (চশমা), মো. ওমর ফারুক (মোটরসাইকেল), মো. সাইফুল আলম (ঘোড়া), মো. ইউনুস ভূট্টো (টেবিলফ্যান), মো. সাইফুল ইসলাম (টেলিফোন) ও সাদ আল আলম চৌধুরী (অটোরিকশা)।
রশিদনগর ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের মোয়াজ্জম মোরশেদ (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. হান্নান চৌধুরী (মোটরসাইকেল) ও এমডি শাহ আলম (আনারস)।
কাউয়ারকোপ ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের ওসমান সরওয়ার মামুন (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী জহির উদ্দিন (আনারস), নুরুল হক (টেবিলফ্যান), মোজাফফর আহমদ (অটোরিকশা), মোস্তাক আহমদ (ঘোড়া), শামসুল আলম (মোটরসাইকেল) ও সাইমুন ইসলাম (চশমা)
রাজারকুল ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের সরওয়ার কামাল (নৌকা), ইসলামী আন্দোলনের তাজুল ইসলাম (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী মুফিজুর রহমান (ঘোড়া) ও সাহেদুল্লাহ আনসারি (আনারস)।
ঈদগড় ইউনিয়নে লড়ছেন আওয়ামী লীগের নুরুল আলম (নৌকা), ইসলামী আন্দোলনের ওসমান সরওয়ার (হাতপাখা), স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল আজিম (মোটরসাইকেল) ও ফিরোজ আহমদ ভূট্টো (আনারস)।
গর্জনিয়া ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগের মুজিবুর রহমান (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী সৈয়দ নজরুল ইসলাম (টেবিলফ্যান), আজিজ মওলা (আনারস), গোলাম মওলা (চশমা), গোলাম মৌলা চৌধুরী (মোটরসাইকেল), মো. মুহিবুল্লাহ (রজনীগন্ধা) ও মো. শফীউল আলম (ঘোড়া)।
কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে নির্বাচনের মাঠে রয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী নুরুল আমিন (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু ইসমাইল মো. নোমান (আনরস), মো. শফীউল আকবর (ঘোড়া), মো. আবু তালেব (রজনীগন্ধা), মো. তৈয়ব উল্লাহ (চশমা), জয়নাল আবেদিন (মোটরসাইকেল), শাহেনা আক্তার (টেবিলফ্যান)।

বলরাম/ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm