এয়ারগান বহন ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করল সরকার

দেশে এয়ারগান বহন ও ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে সরকার। পাখিসহ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের জন্য এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে।
এ নিয়ে মঙ্গলবার (১৪ ডিসেম্বর) পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (বন অধিশাখা-২) দীপক কুমার চক্রবর্তী স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। সেদিন থেকেই এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে।

তবে নিবন্ধিত শুটিং ক্লাব, বনাঞ্চল সন্নিহিত এলাকায় বাস করা জনগোষ্ঠী এ নিষেধাজ্ঞার বাইরে থাকবে।

আরও পড়ুন : জেলেপাড়ায় অস্ত্র নিয়ে ঘুরছিল ৩ তরুণ

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ‘দেশের জীববৈচিত্র্য, পাখি ও বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিশ্চিত করিবার লক্ষ্যে বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন, ২০১২ এর ৪৮ ধারার প্রদত্ত ক্ষমতা বলে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এয়ারগান ব্যবহার বা বহন এতদ্বারা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হইল।

তবে শর্ত থাকে যে, জাতীয় স্যুটিং ফেডারেশন কর্তৃক নিবন্ধিত স্যুটিংক্লাব ও বনাঞ্চল সন্নিহিত এলাকায় বসবাসকারী জনগোষ্ঠী তাহাদের নিরাপত্তা, দৈনন্দিন প্রয়োজন ও সামাজিক প্রথার কারণে উক্তরূপ নিষেধাজ্ঞার আওতার বহির্ভূত থাকিবে। প্রজ্ঞাপন জারির তারিখ হইতে উহা কার্যকর হইবে।’

তবে এক্ষেত্রে বেকায়দায় পড়বে দেশের বিমানবন্দরগুলো। কারণ বিমানবন্দরের খোলা জায়গায় পাখির বিচরণ থাকে। তাই এয়ারগান দিয়ে ফাঁকা গুলি করে অথবা পাখি মেরে তা নিয়ন্ত্রণ করতে হয়। তা নাহলে বিমান উড্ডয়ন ও অবতরণের সময় বার্ড হিটে (পাখির আঘাত) দুর্ঘটনার ঝুঁকি থাকে। প্রজ্ঞাপনে বিমানবন্দরে এয়ারগানের ব্যবহার নিয়ে কোনো নির্দেশনা দেওয়া হয়নি।

ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm