এখন হার্টের চিকিৎসা নিতে বিদেশিরা আসবেন বাংলাদেশে

দেশে প্রথমবারের মতো এমআইসিএস পদ্ধতিতে হার্টের ডাবল ভাল্ব প্রতিস্থাপন করলেন একদল তরুণ চিকিৎসক।

গত মঙ্গলবার (২৫ মে) জাতীয় হৃদরোগ ইনিস্টিটিউটে হাসিনা বেগম নামে (৩০) এক তরুণীর দেহে কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. আশ্রাফুল হক সিয়ামের তত্ত্বাবধানে এই সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়। ৪-৫ ঘণ্টার এই সফল অস্ত্রোপচারে তাঁকে সহায়তা করেন আরও কয়েকজন তরুণ চিকিৎসক।

চিকিৎসকদের মতে, ডাবল ভাল্ব অপারেশন হার্টের অত্যন্ত জটিল অপারেশন। এমআইএস পদ্ধতির মাধ্যমে মাত্র ২-৩ ইঞ্চি ফুটো করে ভাল্ব প্রতিস্থাপন সারাবিশ্বেই অত্যন্ত বিরল।

অধ্যাপক ডা. সিয়াম বলেন, সারাবিশ্বে হাতেগোনা কয়েকটি হাসপাতালে এ ধরনের আধুনিক পদ্ধতিতে অপারেশন হয়ে থাকে। আজ আমরা সেই মাইলস্টোনে পা দিয়ে দেশের নাম উজ্জ্বল করতে পেরেছি। এখন আর বিদেশ নয়, বিদেশিরাই আমাদের দেশে হার্টের চিকিৎসা নিতে আসবে।

কার্ডিয়াক সার্জনস সোসাইটি অফ বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ফারুক আহমেদ বলেন, দেশে এ ধরনের প্রথম সফল অপারেশনের জন্য ডা. সিয়ামকে অভিনন্দন জানায়। হার্টের চিকিৎসায় এটি একটি যুগান্তকারী মাইলফলক ।

জাতীয় হৃদরোগ ইনিস্টিটিউটের পরিচালক মীর জামালউদ্দিন বলেন, এটা অত্যন্ত গর্বের বিষয় আমরা এ ধরনের কসমেটিক সার্জারি শুরু করতে পেরেছি। এই পদ্ধতিতে অপারেশনের সুবিধা হলো রোগীর রক্তক্ষরণ ও ব্যথা অনুভব কম হয় এবং তাড়াতাডি সুস্থ হয়ে বাড়ি যেতে পারে।

অপারেশনে অন্যান্যর মধ্যে ছিলেন অধ্যাপক ডা. শাহনাজ, সহকারী অধ্যাপক ডা. সালাম, সহকারী অধ্যাপক ডা. রোমেনা রহমান ডা. আসিফ আহসান চৌধুরী, ডা. ইমরান, ডা. মন্জুর, ডা. ওয়াহিদা, ডা. সায়েম, ডা. রুবাইয়াত ও ডা. সৌরভ।

আরবি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm