‘ইন্টারনেট বিড়ম্বনা’ টিকা দিতে পারছেন না ১৮০০ লোক

ইন্টারনেট নেটওয়ার্কের সমস্যার কারণে নাইক্ষ্যংছড়িতে টিকাবঞ্চিত হচ্ছেন ৩ ইউনিয়নের ১৮০০ লোক। অথচ ৫ ইউনিয়নে ৩ হাজার লোককে টিকা দেওয়ার কথা ছিল।

ওই ৩ ইউনিয়নে ৭ আগস্ট (শনিবার) তালিকা করেই টিকা দেওয়া হবে। পরের দিনগুলোতে উপজেলা সদরে  নেটের আওতায় এসেই রেজিস্ট্রেশন করানো হবে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নাইক্ষ্যংছড়ি হাসপাতালের প্রধান ডা. এ জেট এম ছলিম।

তিনি বলেন, উপজেলায় ইউনিয়ন রয়েছে ৫টি। এরমধ্যে নেটওয়ার্ক নেই ঘুমধম, সোনাইছড়ি ও দৌছড়ি ইউনিয়নে। সদর ও বাইশারী ইউনিয়নে ৬০০ করে ১২০০ জনকেই রেজিস্ট্রেশন করে টিকা দেওয়া হবে শনিবার।

বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম কোম্পানি বলেন, আমার ইউনিয়নের ১ নম্বর (পুরোনো) ওয়ার্ড়ের ৬০০ লোককে টিকা দিতে রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে। শনিবার শুধু টিকা দেবেন তারা।

সোনাইছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যনিং মার্মা বলেন, আমার ইউনিয়নে ইন্টারনেট সংযোগ নেই। তালিকা করেই আমার ইউনিয়নের ৬০০ বাসিন্দাকে টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি ইউনিয়নে ৩টি করে ওয়ার্ড চিহ্নিত করে টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয় ৭ আগস্ট।

সংশ্লিষ্ট কাজে দায়িত্বরত সরকারি এক কর্মকর্তা জানান, ‘ভ্যাকসিনের ডোজের স্বল্পতার কারণে ৭ থেকে ১২ আগস্টের টিকাদান কর্মসূচির সময়সীমা কমিয়ে আনা হয়েছে। প্রাক-নিবন্ধনের ভিত্তিতে প্রতিটি কেন্দ্রে ৬০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে বয়স্ক, নারী ও প্রতিবন্ধীদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

সংশ্লিষ্ট আরেক কর্মকর্তা জানান, ‘মানুষ অনস্পট নিবন্ধন করে তাৎক্ষণিকভাবে এ ভ্যাকসিনের ডোজ নিতে পারবেন।’

এছাড়া স্থানীয় প্রশাসনের প্রতিনিধিরা তাদের এলাকার মানুষের কাছে টোকেন দিতে পারবেন। টোকেনটি দেখিয়ে তারা এদিন ভ্যাকসিন নিতে পারবেন।

ইউনুছ/ডিসি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm