আলোচনায় ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’­—বিশ্বকাপ শেষেই উধাও হয়ে যাবে এটি

আর মাত্র কয়েক মাস পর শুরু হতে যাচ্ছে ফুটবল বিশ্বকাপের আসর। ‘দ্য গ্রেট শো অন আর্থ’ খ্যাত এ টুর্নামেন্টের ২০২২ আসর হবে কাতারে।

ইতোমধ্যে বিশ্বকাপের টিকিট নিশ্চিত করেছে বাঘা বাঘা দলগুলো। এখন শুধু ক্ষণগণনার পালা।

কিন্তু এবারের ফিফা বিশ্বকাপে যতটা দল নিয়ে কৌতুহল তার চেয়ে বেশি স্টেডিয়াম নিয়ে। কারণ কাতারে প্রচণ্ড গরম। শুরু থেকে এখানে বিশ্বকাপ কীভাবে হবে সেটা নিয়ে নানা বাগবিতণ্ডা গেছে। তবে শেষ পর্যন্ত নাছোরবান্দা কাতার সরকার বিশেষায়িত সব স্টেডিয়াম নির্মাণ করেছে। যেসব তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করবে নিজস্বভাবে।

আরও পড়ুন : এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে ডরমেটরি হল

ঠিক তেমনই একটি হচ্ছে ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’। নামকরণের বৈচিত্র্যতা নিয়ে সবার কৌতুহল রয়েছে। তবে মধ্যপ্রাচ্যের ধনী দেশটির স্টেডিয়ামটি নির্মাণ নিয়ে আরো কিছু তথ্য হচ্ছে-­ ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’ হচ্ছে ২০২২ কাতার বিশ্বকাপের সপ্তম ভেন্যু। এটির নির্মাণকাজ শেষ হয়েছে রোববার (২১ নভেম্বর)।

­আসন্ন আরব কাপ দিয়ে এই স্টেডিয়ামের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হবে। ৩০ নভেম্বর সেই ম্যাচে মুখোমুখি হবে সিরিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।

­ ‘রাস আবু আবুদ’ স্টেডিয়ামটির নতুন সংস্করণ হচ্ছে ‘স্টেডিয়াম ৯৭৪’। ভেন্যুটির অবস্থান দোহা পোর্টের কাছেই। এটি নির্মাণে ব্যবহার করা হয়েছে জাহাজের হাজারখানেক কনটেইনার।

Thai Food

­স্টেডিয়ামের নামের সঙ্গে যুক্ত ‘৯৭৪’ সংখ্যাটি হচ্ছে কাতারের আন্তর্জাতিক ডায়াল কোড।

­বিশ্বকাপের পর স্টেডিয়ামটি পুরোপুরি ভেঙে ফেলা যাবে। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এমন ঘটনা আর দ্বিতীয়বার ঘটেনি।

­স্টেডিয়ামটি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে, তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে আলাদা কোনো প্রযুক্তি দরকার হবে না। স্বাভাবিকভাবেই এটি নিয়ন্ত্রিত থাকবে।

­বিশ্বকাপের শেষ ষোলো পর্ব পর্যন্ত মোট ৭টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে স্টেডিয়ামটিতে। এছাড়া ৪০ হাজার দর্শক একসঙ্গে খেলা উপভোগ করতে পারবেন এখানে।

এর আগে বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুত করা ছয়টি স্টেডিয়াম হলো- ­খলিফা ইন্টারন্যাশনাল, আল জয়নব, এডুকেশন সিটি, আহমাদ বিন আলী, আল বাইত ও আল থুমামা।

তবে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ হবে দোহার আল বাইত স্টেডিয়ামে। তথ্যসূত্র : ইন্টারনেট।

ডিসি
আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm