আবার লকডাউন—যা বললেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তা

দেশে চলছে সাত দিনের ‘কঠোর লকডাউন‘। ‘কড়া’ বিধিনিষেধে ঘেরা এবারের লকডাউনের চতুর্থ দিন আজ (রোববার)। তবে করোনা শনাক্তের সংখ্যা এখনও ঊর্ধ্বমুখী।

এদিন (৪ জুলাই) দেশে ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চসংখ্যক করোনা রোগীর মৃত্যু ও সাড়ে আট হাজারের ওপর নতুন শনাক্তের খবর জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, চলমান করোনা পরিস্থিতির দিকে লক্ষ্য রেখে এ দফার লকডাউন শেষে বিধিনিষেধের সময়সীমা আরও সাত দিন বাড়ানোর বিষয়টি সরকারের নীতি-নির্ধারক পর্যায়ে বিবেচনাধীন রয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে এখনই কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা।

জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইন ডিরেক্টর ও কোভিড-১৯ (ইআরপিপি) প্রোগ্রামের প্রকল্প পরিচালক ডা. মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী আলোকিত চট্টগ্রামকে বলেন, দেশে করোনা শনাক্তের সংখ্যা এখনও ঊর্ধ্বমুখী। লকডাউনের সুফল পেতে আরও সময় লাগতে পারে। তাই চলমান বিধিনিষেধের সময়সীমা আরও বাড়তে পারে। তবে এ ব্যাপারে সরকারের নীতি-নির্ধারণী পর্যায় থেকেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, লকডাউনের মধ্যেই মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার মানসিকতা তৈরি করা উচিত। কারণ লকডাউন শেষে মানুষ যদি আবার নিয়ম ভাঙে, স্বাস্থ্যবিধি না মানে, তাহলে চলমান বিধিনিষেধের প্রত্যাশিত সুফল মিলবে না।

জেডএইচ

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm