আকাশে উড়ে পাহাড়-সমুদ্রের সুখ নেওয়া হবে না কক্সবাজারে

পর্যটন নগরী কক্সবাজারে প্রতিদিনই আসে হাজার হাজার ভ্রমণপিপাসু। তারা ঘুরে বেড়ায় দীর্ঘ মেরিন ড্রাইভ, ইনানী, হিমছড়ি, পাতুয়ারটেক ও দরিয়ানগরে। অনেকে আকাশে উড়ে পাহাড় ও সমুদ্রের রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতার সুখ নিতে করেন প্যারাসেইলিং। কিন্তু প্যারাসেলিং করতে গিয়ে অনেকেই পড়ছেন জীবনের ঝুঁকিতে। কারণ যারা প্যারাসেইলিং পরিচালনা করছেন তাদের অনেকেই অদক্ষ। আবার অনেকে মানছেন না প্রশাসনের নির্দেশনা।

প্যারাসেইলিং করতে গিয়ে সম্প্রতি দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন কয়েকজন পর্যটক। এ অবস্থায় নিরাপত্তা ঝুঁকি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ হয় গণমাধ্যমে।এর জের ধরে আজ (১০ জুন) থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত প্যারাসেইলিং পরিচালনা কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে প্রশাসন।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) মো. মাসুদ রানা বলেন, পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত প্যারাসেইলিং পরিচালনা কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে। ব্যবহৃত সরঞ্জামাদি যাচাই বাছাই, সামগ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা, টেকনিক্যাল টিম কর্তৃক মূল্যায়ন সাপেক্ষে পুনরায় চালু করে দেওয়া হবে। প্যারাসেইলিং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে অভিজ্ঞ বিমানবাহিনীর কমান্ডো অফিসার, নৌবাহিনীর দক্ষ প্রশিক্ষক, লাইফ গার্ড ট্রেইনারসহ টেকনিক্যাল টিম সামগ্রিক মুল্যায়ন কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।

মাসুদ রানা আরও বলেন, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বিমান বাহিনীর কমান্ডো অফিসার, নৌ বাহিনীর দক্ষ প্রশিক্ষক, লাইফ গার্ড ট্রেইনার দিয়ে মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ শুরু হবে। যারা প্রশিক্ষণে মূল্যায়ন হবে তাদেরকেই প্যারাসেইলিং পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হবে। একইসঙ্গে প্রতিমাসেই এ মূল্যায়ন কার্যক্রম চলবে। কারণ আমরা চাই, কক্সবাজার ভ্রমণে আসা প্রত্যেক পর্যটক নিরাপদে ভ্রমণ করুক।

আলোকিত চট্টগ্রাম

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!